ডাঃ এস জামান পলাশ

জামান হোমিও হল

মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট, নীচ তলা শপথ চত্বর, কালীবাড়ী মোড, চাঁদপুর।

ই-মেইলঃ dr.zaman.polash@gmail.com

মোবাইল

01711-943435,
01670- 908547,
01670- 908547

শিরোনাম
চিকিৎসা যেখানে শেষ সেখানেই আমার শুরু ” ক্যান্সারসহ যে কোনো জটিল কঠিন রোগের চিকিৎসা অপারেশান ছাড়া করা হয়।
অণ্ডথলি হঠাৎ ফুলে যাওয়া
অণ্ডথলি ফুলে যাওয়া হলো অন্তথলি অস্বাভাবিক বড় হওয়া। আর অন্তথলি হলো এমন একটি থলি যার মধ্যে অন্তকোষ থাকে। যে কোন বয়সী পুর“ষের অণ্ডথলি ফুলে যেতে পারে। এর সঙ্গে ব্যথা থাকতে পারে, আবার নাও থাকতে পারে।
অণ্ডথলি ফুলে যাওয়ার কারণ
০ আঘাত
হার্নিয়া
কনজেসটিভ হার্ট ফেইলিওর
০ হাইড্রোসিল
অণ্ডকোষের প্রদাহ
০ অন্তকোষে প্যাঁচ খাওয়া
০ ভ্যারিকোসিল বা অন্তথলির শিরার স্ফীতি
০ কিছু নির্দিষ্ট ওষুধ
০ যৌনাঙ্গ এলাকায় শল্য চিকিৎসা
অণ্ডকোষে প্যাঁচ খাওয়া একটি মারাÍক জরুরী অবস্থা। এ ক্ষেত্রে অন্তকোষ পেঁচিয়ে যায় এবং এর ফলে অন্তকোষে রক্ত সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। যদি দ্রুত প্যাঁচ খোলা না যায় তা হলে অন্তকোষ স্থায়ীভাবে নষ্ট হয়ে যেতে পারে।
ঘরোয়া চিকিৎসা
০ প্রথম ২৪ ঘণ্টা অন্তথলিতে বরফের সেঁক দিতে হবে। এরপর সিজবাথ নিলে ফোলা কমবে।
০ যদি ব্যথা তীব্র হয় তা হলে একটি তোয়ালে পাকিয়ে অন্তকোষের ঠিক নিচে দু’পায়ের মাঝে রাখতে হবে। এতে ব্যথা ও ফোলা দু’টোই কমবে।
০ দৈনন্দিন কাজ করার পর টিলেঢালা এ্যাথলেটিক সাপোর্টার পরা যেতে পারে। ফোলা কমে যাওযা না পর্যন্ত কাজকর্ম করা থেকে বিরত থাকতে হবে।
কখন চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবে
যদি আপনার অন্তথলি ফুলে যায়, যদি ফোলাটা ব্যথাযুক্ত হয়, কিংবা যদি অন্তকোষে চাকা অনুভব করেন তা হলে অবশ্যই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবেন।
চিকিৎসক যা করবেন
চিকিৎসক আপনাকে শারীরিক পরীক্ষা করবেন ও রোগের ইতিহাস নেবেন। তিনি আপনার কাছে নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর জানতে চাইতে পারেনথ
০ কখন ফোলা শুরু হয়? * এটা হঠাৎ করে হয়েছে?
০ অবস্থা আরও খারাপ হচ্ছে? * ফোলাটা কত বড়?
০ ফোলাটায় কি পানি জমেছে?
০ ফোলা কি অন্তথলির এক দিকে, নাকি সমগ্র অন্তথলিতে?
০ দু’পাশের ফোলা কি একই ধরনের?
(কখনও কখনও অন্তথলির ফোলা প্রকৃতপক্ষে বড় অন্তকোষ, অন্তকোষে চাকা অথবা শুক্রবাহী নালির ফুলে যাওয়ার কারণে হয়।)
০ আপনার যৌনাঙ্গ এলাকায় কোন অপারেশন হয়েছে?
০ আপনার যৌনাঙ্গ এলাকায় কি কোন আঘাত পেয়েছেন?
০ আপনার যৌনাঙ্গ এলাকায় কি সম্প্রতি কোন সংক্রমণ হয়েছে?
০ আপনি বিছানায় বিশ্রাম নিলে কি ফোলা চলে যায়?
০ আপনার অন্তথলিতে কি কোন ব্যথা আছে?
চিকিৎসক যথাযথ এ্যান্টিবায়োটিক ও ব্যথানাশক ওষুধ দিতে পারেন।
মূত্রনালী পথে নিঃসরণ
যদি আপনার মূত্রনালী পথে রস নিঃসরণ হয় তাহলে সম্ভবত আপনার যৌনবাহিত সংক্রমণ রয়েছে যা আপনি অন্যের মধ্যে ছাড়াতে পারেন। এ ক্ষেত্রে অবশ্যই আপানি ডাক্তার দেখাবেন, এমনকি আপনার উপসর্গ চলে গেলেও।
মূত্রনালীর প্রদাহ কী এবং এর কারণ কী?
মূত্রনালীর প্রদাহকে চিকিৎসা পরিভাষায় বলে ইউরেথ্রাইটিস। মূত্রনালী হ”েছ একটি নল যা মূত্রথলি থেকে লিঙ্গের মাথা পর্যন্ত বিস্তৃত। মূত্রনালীর প্রদাহ সাধারণত যৌনবাহিত সংক্রমণ দ্বারা ঘটে। তবে সব সময় নয়। এটা সীমাবদ্ধ যৌন সম্পর্কের মধ্যেও ঘটতে পারে।
গনোরিয়া
এটা এক ধরনের যৌনবাহিত সংক্রমণ যা মূত্রনালীর প্রদাহ ঘটাতে পারে।
নন-গনোকক্কাল ইউরেথ্রাইটিস
গনোরিয়া ছাড়া অন্য যে কোন কারণে মূত্রনালীর প্রদাহ হলে তাকে নন-গনোকক্কাল ইউরেথ্রাইটিস বলে। এটার সবচেয়ে সাধারণ কারণ হলো ক্লামাইডিয়া নামক ব্যাকটেরিয়া। এটা এক ধরনের যৌনবাহিত সংক্রমণ। এ ধরনের মূত্রনালীর প্রদাহ অন্য ধরনের ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাস দ্বারাও ঘটতে পারে। কখনও কখনও কোন সংক্রমণ ছাড়াও ঘটতে পারে। উদাহরণস্বরূপ মূত্রনালীতে আঘাত পেলে বা কোন অপারেশন হলে প্রদাহ হতে পারে। কোন কোন পুরুষের একই সময়ে গনোরিয়ার জীবাণু এবং অন্য জীবাণু দ্বারা মূত্রনালীর প্রদাহ হতে পারে।
মূত্রনালীর প্রদাহের উপসর্গগুলো কি?
০ সাধারণত লিঙ্গের মুখ দিয়ে নিঃসরণ বা তরল পদার্থ বের হয়, তবে সব সময় নয়।
০ প্রসাব করার সময় ব্যথা বা জ্বালাপোড়া করে। এটা অনেকে প্রস্রাবে ইনফেকশন বলে ভুল করতে পারেন।
০ লিঙ্গের মধ্যে জ্বালাপোড়া করতে পারে অথবা ঘন ঘন প্রস্রাব করার ইচছা জাগতে পারে।
০ মূত্রনালীর প্রদাহে কোন কোন পুরুষের কোন উপসর্গ নাও থাকতে পারে। উদাহরণস্বরূপ ক্লামাইডিয়া সংক্রমণের অর্ধেকসংখ্যক পুরুষের কোন উপসর্গ থাকে না।
কিভাবে রোগের উন্নতি ঘটে?
উপসর্গগুলো অনেক সময় এমনিতেই চলে যায়। এ ক্ষেত্রে দু’সপ্তাহ থেকে ছ’মাস সময় লাগতে পারে। যদি ব্যাকটেরিয়াজনিত কারণে যেমন ক্লামাইডিয়ার কারণে মূত্রনালীর প্রদাহ ঘটে তখন কিছু ব্যাকটেরিয়া মূত্রনালীতে থেকে যায়। তখন অবশ্যই চিকিৎসার প্রয়োজন হয়। এ ক্ষেত্রে উপসর্গ চলে গেলেও চিকিৎসা করাতে হবে। যে ব্যাকটেরিয়াটি (ক্লামাইডিয়া) সচরাচর পুরুষদের মূত্রনালীর প্রদাহ ঘটায় সেটি মহিলাদের মারাÍক সমস্যা ঘটাতে পারে।
মূত্রনালীর প্রদাহ হলে কি করা উচিত?
০ এটা কখনই অবহেলা করবেন না। অবশ্যই ডাক্তার দেখাবেন, এমনকি আপনার উপসর্গ চলে গেলেও ডাক্তার দেখাবেন।
০ আপনার ডাক্তার আপনাকে কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাতে পারেন। এসব পরীক্ষার মধ্যে রয়েছে নিঃসরণ পরীক্ষা ও প্রস্রাব পরীক্ষা যা আপনার সংক্রমণের কারণ নির্ণয়ে সাহায্য করবে।
০ এ্যান্টিবায়োটিক সাধারণত সংক্রমণ দূর করবে। তবে এটি নির্ভর করে রোগের কারণের ওপর।
০ আপনার যৌন সঙ্গীকেও ডাক্তার দেখাতে হবে, এমনকি তার কোন উপসর্গ না থাকলেও। যৌনবাহিত রোগে আক্রান্ত অনেক মহিলার কোন উপসর্গ প্রকাশ পায় না।
০ আপনার ও আপনার যৌন সঙ্গীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসা শেষ না হওয়া পর্যন্ত যৌনসঙ্গম করবেন না।